কংগ্রেসের নতুন ব্লক সভাপতিদের নাম ঘোষণা করলেন জেলা সভাপতি, বিরুদ্ধ মত পোষণ দলের বিপক্ষ গোষ্ঠীর

0
715

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় কংগ্রেসের ব্লক সভাপতি নির্বাচন নিয়ে গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব আরও প্রকট হল। শুক্রবার দলের জেলা দফতরে জেলা সভাপতি সমীর রায় সমস্ত ব্লকে নতুন করে সভাপতিদের নাম ঘোষণা করেন। সেখানে ডেবরা, সবং, দাঁতন, কেশিয়াড়ি বাদে বাকি ব্লকগুলিতে সভাপতি পদে নতুন মুখ আনা হয়েছে। কংগ্রেসের অপর গোষ্ঠীর অভিযোগ, ওই সভাপতি পদের তালিকায় স্বজন পোষণ করা হয়েছে। সর্বোপরি এ আই সি সি-র অনুমোদন রয়েছে কিনা তা জেলা সভাপতি খোলসা করছেন না। এদিন জেলা কংগ্রেস কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠক করে সমীর বাবু ব্লক সভাপতিদের নাম ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, জেলায় সংগঠনকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে ব্লকে সভাপতিদের পরিবর্তন করা হয়েছে। কোনও ব্লকে সভাপতি মারা গিয়েছেন, আবার কোথাও সভাপতি অকেজো ছিলেন। সামনে ভোট। তাই সেদিকে লক্ষ্য রেখে এই পরিবর্তন করা হয়েছে। সমীরবাবু এও বলেন, তরুন প্রজন্মকে দলে যুক্ত করতে নতুন করে ব্লক সভাপ্তিদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আগামী দিনে জেলা জুড়ে আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। সমীরবাবুর ওই তালিকায় দেখা গিয়েছে শহর কংগ্রেসের সভাপতি সৌমেন খানকে অব্যাহতি দিয়ে নতুন সভাপতি করা হয়েছে শান্তি দত্তকে। মেদিনীপুর গ্রামীণের সভাপতি করা হয়েছে পঙ্কজ পাত্রকে। কেশপুরে সুনীল দোলই, আনন্দপুরে বিজয় পাত্র, শালবনিতে কালিসাধান মাহাত, ঘাটাল গ্রামীন শ্যামপদ রায়কে সভাপতি করা হয়েছে। হাতে গোনা দু’চারটি ব্লক ছাড়া বাকি সমস্ত ব্লকেই নতুন করে সভাপতি করা হয়েছে। এনিয়ে দলের সহ সভাপতি শম্ভুনাথ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “আমরা খোঁজ নিয়ে দেখেছি এ আই সি সি-র কোনও অনুমোদন নেই ওই তালিকাতে। যদিও এব্যাপারে সমীরবাবু সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, “দলের প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী তালিকা অনুমোদন করে সংগঠনকে ঢেলে সাজাতে চাইছেন। তারপর কে কী বলছেন, যা বলবেন তাতে কান দিচ্ছি না।”

জেলা কংগ্রেসের মধ্যে দুই গোষ্ঠীর বিবাদ করোর অজানা নয়। দলের বিভিন্ন কর্মসূচিতে জেলা সভাপতির পাশে সামিল না হয়ে বিভিন্ন সময় পৃথক দলীয় কর্মসূচি পালন করছেন শম্ভুনাথ চট্টোপাধ্যায়, সৌমেন খানদের নেতৃত্বে বিরোধী শিবির। শুক্রবার জেলা সভাপতি সমীরবাবু ব্লক সভাপতিদের নাম ঘোষণা করতেই বিরুদ্ধ মত পোষণ করতে শুরু করেছেন শম্ভুনাথ বাবুরা।