মমতার সরকার মোদী সরকারের পথেই চলছে, মানুষকে বিভাজিত করছেঃ বৃন্দা কারাত

0
229

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ সিপিএম প্রার্থী দেবলীনা হেমব্রমের সমর্থনে বেলপাহাড়িতে মঙ্গলবার প্রচারে এলেন বৃন্দা কারাত। এদিন ভিড়ে ঠাসা সভায় বৃন্দা কারাত বলেন, “বাংলায় মমতা অনেক বড় কথা বলছেন, কিন্তু কাজের সময় দুর্নীতি হচ্ছে। কেন্দ্রে মোদী যেমন সংবিধানের অধিকার দূর্বল করেছেন তেমনই বাংলায় তা করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গত পাঁচ বছরে চ্যালেঞ্জের সঙ্গে বলছি বিজেপি সরকারে বসে যেসব আইন-কানুন তৈরি করেছে তার মধ্যে তিনটি আইন সরাসরি আদিবাসী মানুষজন স্বার্থের পরিপন্থী। আর অন্যান্য আইন কানুন বড় বড় পুজিপতিদের জন্য হয়েছে। আদিবাসীদের জমি কেড়ে নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। নিজের প্রচার ও বিজ্ঞাপনের জন্য যেখানে মোদী সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা খরচ করেছেন সেখানে আদিবাসী ছেলে মেয়েদের জন্য বছরে দু-হাজার সাতশো কোটি টাকা মাত্র খরচ হয়েছে। “বৃন্দা দেবী আরও বলেন, মমতা সরকারও মোদীর পথে চলছে। মমতার সরকার সব কিছু করতে পারে। দুর্নীতিতে অভিযুক্ত অফিসারদের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধর্নায় বসতে পারেন। আদিবাসীদের জমির উপর মোদী সরকার যখন আক্রমণ করছে, সেই সময় মমতা একটি চিঠিও লেখেননি। কারণ মোদী যা করেছেন মমতাও তাই করছেন। মোদী মানুষকে বিভাজিত করেছেন, মমতাও মানুষকে বিভাজিত করেছেন। আমাদের অফিস দফল করা হয়েছে, আদিবাসী ও কুড়মিদের হত্যা করা হয়েছে, অদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে জেলে পোরা হয়েছে। তৃণমূলের আমলে জঙ্গলে বনজ সম্পদের দাম বাড়েনি। অথচ আমাদের সরকারের সময় ল্যাম্পসের মাধ্যমে বনজ সম্পদের দাম দিয়েছি। এখন ঘন্টার পর ঘন্টা জঙ্গলে গিয়ে আদিবাসী মানুষজন এক হাজার শালপাতা বিক্রি করে মাত্র ৯০টাকা পান, কমপক্ষে ১৫০টাকা পাওয়ার দরকার ছিল। আদিবাসীদের জন্য একমাত্র সিপিএমই লড়াই করেছে। সভায় প্রার্থী দেবলীনা হেমব্রম ছাড়াও বক্তব্য রাখেন রবীন্দ্রনাথ হেমব্রম। সভাপতিত্ব করেন পুলিন বিহারী বাস্কে।

     বৃন্দা দেবী আরও বলেন, গত পাঁচ বছরে আর এস এস এবং বিজেপি দেশ জুড়ে হিংসাত্মক কার্যকলাপ ছাড়া একটা কোনও উন্নয়নের কাজ করেনি। গত পাঁচ বছরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশকে অনেক পিছিয়ে দিয়েছেন। নোট বন্দি, জিএসটি চালু করে ভারতে দেড়কোটি মানুষের রুটি রুজিতে আক্রমণ হানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সিপিএমের পলিটব্যুরোর সদস্য বৃন্দা কারাত বক্তব্য রাখতে গিয়ে আরও বলেন, মোদী সরকার আদিবাসী মানুষকে অস্বীকার করেছে। তাই বনাঞ্চলের আদিবাসী মানুষের উন্নয়ন হয়নি। আদিবাসী মানুষের বন ভূমির অধিকার, জলাভূমির অধিকার, জঙ্গলের উপকরণের উপর অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। যুগের পর যুত ধরে আদিবাসী মানুষ, মূলবাসি মানুষ যেখানে বসবাস করছেন, সেই জায়গা কেড়ে নিতে চাইছে বিজেপি। তার বিরুদ্ধে বামপন্থীরাই লড়াই করে চলেছে।