বন্যার জলে তলিয়ে যাওয়া যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার হল

0
799

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ মঙ্গলবার বন্যা দেখতে গিয়ে জলে তলিয়ে নিখোঁজ হয়ে যাওয়া কেশপুরের যুবক সেক সেলিমের মৃতদেহ উদ্ধার হল বুধবার। সকালে কেশপুরের মুগবসান চাথাল লাগোয়া এলাকায় জলে একটি মৃতদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয় মানুষেরা। এরপর তারা জল থেকে মৃতদেহটি তুলে আনার পর দেখা যায় সেলিমের মৃতদেহ। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে আজ এলাকায় চাঞ্চল্য দেখা দেয়। মৃত যুবকের নাম সেক সেলিম (২১)। বাড়ি কেশপুরের শাকপুরে। উল্লেখ্য, গত তিন দিন ধরে ভারী বৃষ্টির ফলে জেলার বিস্তৃর্ণ এলাকায় তৈরী হয়েছে বন্যা পরিস্থিতি। নদীর জল বাড়ায় কেশপুরের মুগবসান এলাকায় রাস্তার উপর দিয়ে জল বইতে শুরু করে। গতকাল অন্যান্যদের মত সেলিমও তার বন্ধুদের সঙ্গে মুগবসান চাথালে সেই বন্যার দৃশ্য দেখতে যায়। সেখানেই অসাবধানতা বসত সে জলে পড়ে গিয়ে তলিয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় মানুষজন জলে নেমে খোঁজাখুঁজি শুরু করলেও তার খোঁজ মেলেনি। ঘটনার পর তারা বিষয়টি কেশপুর থানায় জানান এবং ডুবুরি নামিয়ে খোঁজার জন্য বলেন। কিন্তু কয়েক ঘন্টা পরেও পুলিশ ডুবুরির ব্যবস্থা করতে পারেনি বলে স্থানীয় মানুষদের অভিযোগ। এরপরই ক্ষিপ্ত জনতা পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায় এবং কেশপুর রাস্তা অবরোধ করে। তাদের দাবি অবিলম্বে জলে ডুবুরি নামিয়ে ঐ যুবককে খোঁজার ব্যবস্থা করুক পুলিশ প্রশাসন। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। গতকাল রাত্রি পর্যন্ত পুলিশ ডুবুরি নামিয়ে তল্লাশী চালালেও সেলিমের কোন খোঁজ মেলেনি। আজ সকালে উদ্ধার হয় তার মৃতদেহ। পুলিশ মৃতদেহটি ময়না তদন্তের জন্য মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। স্থানীয়রা জানায়, জলে ডোবার আগে কয়েকবার হাত দেখিয়ে বাঁচানোর জন্য ইশারা করে এবং তারপরই তলিয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে অনেকেই জলে ঝাঁপ দিয়ে খোঁজ করলেও পাওয়া যায়নি সেলিমকে।