নিয়ম করেই শনিবারের শনি মন্দিরে পুজো দিলেন ভারতী, তবে গভীর রাতে, সন্তর্পণে

0
1001

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ নিয়ম করে গত শনিবারও গভীর রাতে শহরের কুইকোটার শনি মন্দিরে পুজো দিতে এসেছিলেন প্রাক্তণ জেলা পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ । তবে চিত্রটা ছিল অন্য শনিবারের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা । রাস্তা জুড়ে পুলিশ ব্যারিকেড, গাড়ি থামিয়ে দেওয়ার মতো কোনও দৃশ্য দেখা যায় নি। পশ্চিম মেদিনীপুর যতদিন তিনি পুলিশ সুপারের পদে ছিলেন ততদিন প্রতি শনিবার কুইকোটার শনি মন্দিরে পুজো দিতেন। রাত সাড়ে এগারটা নাগাদ পুজো দিতেন। পুজো দেওয়ার সময় মন্দিরের দুপাশে পিচ রাস্তায় পুলিশ মোতায়েন থাকত। সমস্ত গাড়ি থামিয়ে দেওয়া হত। গাড়ির লাইট নিভিয়ে হেঁটে পার হতে হত। এতে প্রচণ্ড বিরক্ত হতেন পথচারীরা। কিন্তু কোনও উপায় ছিল না। গত শনিবারেও পুজো দিতে এসেছেন তিনি। পুজোও দিয়েছেন, তবে পুলিশ কোনও চোখরাঙানি ছিল না, পুজো দেন অতি সন্তর্পণে । পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রাক্তন পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষকে বদলি করার পর চাকরি থেকে ইস্তফা দেন তিনি। যদিও সেই ইস্তফাপত্র গ্রহণ করা হয়নি বলে নবান্ন সূত্রে খবর। এর মধ্যে ভারতী ঘোষকে নিয়ে বিভিন্ন খবর বাজারে ছড়িয়ে যায়। সূত্রের খবর বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন এই প্রাক্তণ পুলিশ কর্তা । বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের কাছে চিঠি দিয়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার আবেদনও জানিয়েছেন তিনি। যদিও এবিষয়ে ভারতী ঘোষের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। স্বাভাবিকভাবেই তাঁর সমর্থনও মেলেনি। 

প্রসঙ্গতঃ চলতি সপ্তাহেই পশ্চিম মেদিনীপুর পুলিশ সুপারের পদ থেকে ব্যারাকপুরের তৃতীয় ব্যাটেলিয়নে বদলি করা হয় ভারতীকে । এরপরই রাজ্য পুলিশের ডিজি সুরজিৎকর পুরকায়স্থর কাছে ইস্তফাপত্র পাঠান তিনি । সঙ্গে সঙ্গে তিন মাসের ছুটির আবেদনও জানান। যার কোনওটিই মঞ্জুর হয়নি বলে নবান্ন সূত্রে খবর। রাজনৈতিক মহলের খবর, এক সময় মুখ্যমন্ত্রীর নিকট ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত ছিলেন ভারতী। শেষের দিকে বিভিন্ন ইস্যুকে কেন্দ্র করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক তলানিতে এসে পৌঁছায়। যার পরিণতি দাঁড়ায় বদলি।