রায়গঞ্জে প্রিসাইডিং অফিসারের মৃত্যু, অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে কো-অর্ডিনেশন কমিটির বিক্ষোভ

0
806

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ রায়গঞ্জে প্রিসাইডিং অফিসার রাজকুমার রায়ের মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে সোচ্চার হল কো-অর্ডিনেশন কমিটি। একই সঙ্গে মহকুমা শাসক নিগ্রহের ঘটনায় দুই শিক্ষকের গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা করা হয়েছে। কো-অর্ডিনেশন কমিটির অভিযোগ, ঐ দুই শিক্ষককে মিথ্যা অভিযোগে গ্রেতার করা হয়েছে। সোমবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলাশাসকের অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখান কো-অর্ডিনেশন কমিটির নেতা কর্মীরা। স্লোগান দেওয়া হয় রাজকুমার রায়ের মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্তদের অভিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে। মিথ্যা অভিযোগ দুই শিক্ষকে গ্রেফতার করলে কেন জবাব দিতে হবে। উল্লেখ্য প্রিসাইডিং অফিসার রাজকুমার রায়ের রহস্যমৃত্যুর প্রতিবাদে ১৬ মে রায়গঞ্জে পথ অবরোধ করেছিলেন ভোট কর্মী শিক্ষকরা। তাঁদের দাবি ছিল রাজকুমারবাবুকে তুলে নিয়ে গিয়ে নৃশংস ভাবে খুন করা হয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন মহকুমাশাসক। অভিযোগ, শিক্ষকিদের কয়েকজন ঝাঁপিয়ে পড়েন মহকুমা শাসকের উপর। তাঁকে নিগ্রহ করা হয়। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ দুই শিক্ষককে পুলিশ গ্রেফতার করে। তাঁর বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা রুজু করা হয়। দুই শিক্ষককে আদালত ২ জুন পর্যন্ত জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। ওই ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষক সমাজের পাশাপাশি কো-অর্ডিনেশন কমিটিও আন্দোলনে নেমেছে। মনীন্দ্রনাথ মাইতি, মণীশঙ্কর গিরি, দুলাল দত্তের নেতৃত্বে এদিন জেলাশাসকের অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখানো হয়।