পাকা ধানে মই দিল অকালবর্ষণ

0
138
পত্রিকা প্রতিনিধিঃ মাথায় হাত ঘাটাল মহকুমার কৃষকদের। বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার দিনভর নিম্নচাপের বৃষ্টিতে নাকাল ঘাটাল মহকুমা। বিপর্যস্ত জনজীবন। কালীপুজো ও দীপাবলির উৎসব ম্লান। গত ২৪ ঘন্টায় ঘাটাল মহকুমায় বৃষ্টিপাত হয়েছে প্রায় ১২০ মিলিলিটার। আবহাওয়া দপ্তর জানাচ্ছে বৃষ্টি হবে শনিবারও। সেক্ষেত্রে ম্লান হতে পারে ভাইফোঁটাও। তবে নিম্নচাপের এই বৃষ্টিতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্ভাবনা ধান চাষে। এখন মাঠে মাঠে পাকা ধান। সামনেই ধানকাটার মরসুম। আসছে নবান্ন। তার আগে বিঘার পর বিঘা জমির পাকাধান জলের তলায়। ঘাটালের রাধানগরের কৃষক হিমাংশু রায় আড়াই বিঘা জমিতে ধান লাগিয়েছিলেন। এই বৃষ্টিতে পুরোটাই জলের তলায়। মোবাইলে সেকথা বলতে গিয়ে একরকম কেঁদেই ফেললেন তিনি। বলেন, ধানগুলো সবে পাকতে আরম্ভ করেছে, তার আগেই এই বৃষ্টি প্রচুর ক্ষতি করে দিল। চন্দ্রকোনার মনোহরপুর, ডিঙ্গাল, শ্রীনগর, ভৈরবপুর, বৈকুন্ঠপুর, মহেশপুর, কুঁয়াপুর, দাসপুরের গৌরা, রানিচক, চাঁইপাট, সুলতাননগর, নাড়াজোল প্রায় সর্বত্র ধানজমি জলের তলায় চলে গেছে। কৃষকেরা বলছেন, জমিতে জল দাঁড়িয়ে থাকলে ধান গাছের গোড়া পচে যেতে পারে, পাকা ধানের শিসও নষ্ট হবে। এককথায় এই অকালবর্ষণে আমন ধানের দফারফা। জেলা পরিষদের কৃষি ও সেচ কর্মাধ্যক্ষ নির্মল ঘোষ বলেন, ‘ধানচাষের ক্ষয়ক্ষতির হিসাব করতে ব্লক গুলিকে বলেছি, পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট এলে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের জন্য কিছু করা যায় কীনা তা আলোচনা করে দেখা হবে।’