সেই প্লাস্তিক-থার্মোকলের রমরমা শহরে, জল জমছে খালে, সংস্কার করা হয়নি কালভার্ট

0
177
পত্রিকা প্রতিনিধিঃ প্লাস্টিক থার্মোকল নিষিদ্ধ করতে এক সময় মেদিনীপুর পুরসভা কর্তৃপক্ষ তৎপর হয়েছিল। দিন পনেরো অভিযান চালানোর পর পুর কর্তৃপক্ষের আর কোন হুঁশ নেই। প্লাস্টিক-থার্মোকলের ব্যবহার যে রমরম করে আগের মতো চলছে তা শহরের রাস্তাঘাট ঘুরলে চোখে পড়ে। আবার দ্বারিবাঁধ খালের যে কটি যায়গায় ইংরেজ আমলের তৈরি কালভার্ট রয়েছে সেখানে থার্মোকল জমে গিয়েছে। গলে খালের জল সহজে নদীর দিকে যাচ্ছে না। বাক্সীবাজার ও মহতাবপুরে যে কালভার্ট রয়েছে তার মুখ প্লাস্টিক ও থার্মোকলে বন্ধ হয়ে গিয়েছে। কালভার্টের মুখ পরিষ্কার করার জন্য পুরসভার কোনও হেলদোল নেই।
   শহর বাড়ছে, বাড়ছে জনসংখ্যা। কিন্তু কালভার্টগুলি ভেঙে নতুন করার ক্ষেত্রে পুর কর্তৃপক্ষ কোনও পদক্ষেপ নিচ্ছে না। শহরের অনেকেই জানিয়েছেন, প্লাস্টিক থার্মোকল নিষিদ্ধ বলে ঘোষনা করে পুর কর্তৃপক্ষ দায় সেরেছে। থার্মোকল বিক্রি ও ব্যবহার বন্ধ করতে যে ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া দরকার তা পুর কর্তৃপক্ষ নেয়নি। ১৮নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সৌমেন খান বলেন অবিলম্বে দ্বারিবাঁধ খালের উপর থাকা ইংরেজ আমলের তৈরি সমস্ত কালভার্ট ভেঙে নতুন করা দরকার। ওই কালভার্টগুলির জন্য একটু বেশি বৃষ্টি হলে নিচু এলাকায় নোংরা জল জমে যায়। তিনি এও বলেন দ্বারিবাঁধ খাল মাঝে মাঝে সংস্কার করা হয়। পুরো খাল সংস্কার করা হচ্ছে না। ফলে এক দিকে সংস্কার করলে অন্যদিকে খাল মজে যাচ্ছে। খাল সংস্কারের জন্য লক্ষ  লক্ষ টাকার মেশিন এনে ফেলে রাখা হচ্ছে। ১২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর টোটন সাসপিল্লি জানিয়েছেন দ্বারিবাঁধ খাল সংস্কালে পুরসভার আরও অনেক ইতিবাচক ভুমিকা নেওয়া দরকার।