দিলীপের সমর্থনে বিজেপির সভায় রাজ্য সরকারের কড়া সমালোচনায় প্রতিরক্ষামন্ত্রী

0
343

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ বুধবার খড়গপুরে দলীয় প্রার্থী দিলীপ ঘোষের সমর্থনে সভা করতে এসে তৃণমূল ও রাজ্য সরকারের কঠোর সমালোচনা করলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। তাঁকে বলতে শোনা যায় তৃণমূল মানে, “তুষ্টিকরণ মাফিয়া কর্পোরেশন”। তৃণমূলকে সিন্ডিকেট মোর্চার সঙ্গে তুলনা করে তিনি বলেন, “এই রাজ্য সব কিছুতেই তৃণমূলের সিন্ডিকেট ট্যাক্স দিতে হয়। নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর পরিবারকে বাড়ি মেরামতের জন্য সিন্ডিকেটের ট্যাক্স দিতে হয়েছে। নারদা, সারদা আর সিন্ডিকেট নিয়ে নাজেহাল এখানকার মানুষ।” এদিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী দাবি করেন, ২০১৪ সালের পর থেকে দেশে আচ্ছে সরকার এসেছে। দেশের মধ্যেই অস্থিরতা, অশান্তির আবহ তৈরি করার জন্য তৃণমূল সহ বিরোধী দলগুলি চেষ্টা করছে। হয়তো জম্মু কখনও কখনও অশান্ত হয়ে উঠেছে। কিন্তু বিরোধীরা এমন করছেন যেন সারা দেশ অশান্ত হয়ে উঠেছে। পুলওমার হামলার বদলা নিতে সীমান্তের ওপারে গিয়ে জঙ্গিদের আতুঁড় ঘর ধ্বংস করা হয়েছে। এই রাজ্য কেন্দ্রের সরকারি কোনও প্রকল্পকে চালু করতে দেওয়া হয় না বলে অভিযোগ তুলে নির্মলা বলেন, কেষান ক্রেডিট কার্ড, আয়ুষ্মান প্রকল্পের মতো সামাজিক প্রকল্প থেকে মানুষকে বঞ্চিত করে রেখেছে তৃণমূল সরকার। এখানকার সরকারি কর্মচারীরা সপ্তম বেতন পে কমিশনের বেতন পান না। পঞ্চম পে কমিশনের বেতন দেওয়া হয়। যদিও লোকসভার ভৌগলিক অবস্থা সম্পর্কে কোনও ধারণা না থাকায় দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে সভা করতে এসে তৃণমূল ও রাজ্য সরকারের সমালোচনা করতে গিয়ে মেদিনীপুরের সঙ্গে কেশিয়াড়িকে গুলিয়ে ফেললেন দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামন।

এদিন খরগপুর পুরসভার ২০ নম্বর ওয়ার্ডে ধ্যান সিং ময়দানের সভা থেকে তাঁকে বলতে শোনা যায়, মেদিনীপুরের পঞ্চায়েত বোর্ডে বিজেপি জয়ী হলেও তৃণমূল সরকার বোর্ড গঠন করতে দিচ্ছে না। গণতন্ত্র এটা শোভা পায় না। মঞ্চে থাকা রাজ্য বিজেপি সভাপতি ভূল শোধরানোর চেষ্টা করলেও তা তিনি শুনতে পাননি। তাই বার বার ভূলই বলতে থাকেন। ফলে সভায় ফিসফাস শুরু হয়ে যায়। মঞ্চের নীচে থাকা কর্মীদের বলতে শোনা যায়, “দেশের একজন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী, অথচ ভৌগলিক অবস্থান সম্পর্কে ধারনাই নেই।” এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষ, জেলা সভাপতি শমিত দাস প্রমুখ।

এদিন বেলা সাড়ে বারোটা নাগাদ তিনি হাজির হন খড়গপুর শহরের ধ্যানসিং মাঠে। যেখানে বহু বিজেপি কর্মী সমর্থক উপস্থিত ছিলেন, যার বেশির ভাগটাই অবাঙালি তেলেগু। এই সভামঞ্চ থেকে কিছুটা হিন্দিতে ভাষন দেওয়ার পরে বাকিটা তেলেগুতে ভাষণ দেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

নির্মলাদেবী তাঁর বক্তব্যে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে কাটাক্ষ করে বলেন, “আমরা জঙ্গিদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে গেলেই বাংলায় আমাদের দিদির দুঃখ হয়। উনি প্রমাণ চান। উনি প্রমাণ চাওয়ার কে? আমি জিজ্ঞেস করতে চাই, যখন বিচ্ছিন্নতাবাদীরা জম্মু-কাশ্মীরে তাদের প্রধানমন্ত্রী দাবি করেন, তখন দিদির অবস্থানও মতামত কি? উনি পরিষ্কার করুন উনি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে কিনা। তবে আমি জানি আপনি তা হতে পারেন না তার কারণ আপনিও শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মাটিতে জন্মগ্রহণকারী।