টিউশনি পড়ানোর নাম করে বাড়িতে নিয়ে গিয়ে কিশোরীকে নিগ্রহ, গ্রেফতার অভিযুক্ত

0
735

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ বাড়িতে টিউশনি পড়ানোর নাম করে এক নবম শ্রেণির কিশোরীকে শারীরিক নির্যাতন করার অভিযোগ ওঠে এক অবসরপ্রাপ্ত কারা কর্মীর বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে শহরের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের টাউন কলোনিতে। যার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ উঠেছে তিনি হলেন ঐ এলাকার আশিস মণ্ডল। পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করেছে এবং বুধবার মেদিনীপুর আদালতে তোলা হয়। নির্যাতিতার বয়ান থেকে জানা যায় যে আশিস মণ্ডল তাকে বাড়িতে নিয়ে যাআন তাঁর মেয়ের কাছে টিউশনি পড়ার জন্য। সেখানে আশিসবাবু দরজা আটকে তার উপর অত্যাচার করেন এবং মোবাইলে ছবিও তুলে রাখেন। এরপর তিনি তাকে তার বাড়িতে ছেড়ে আসেন এবং ঘটনার কথা গোপন রাখতে বলেন। না হলে মোবাইলের ছবি সর্বত্র ছড়িয়ে দেওয়া হবে বলে হুমকিও দেন।

প্রতিবেশিরা জানান আশিসের সঙ্গে নির্যাতিতা কিশোরীর বাবার বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল। একই সঙ্গে আড্ডা মারা এমনকি এক সঙ্গে মদ্যপান করতেও দেখেন প্রতিবেশীরা। সেই সূত্রে কিশোরীর বাড়িতে অভিযুক্ত আশিস মণ্ডল প্রায়ই যাতায়াত করতেন। তাঁর চফালচলন, চাউনি মোটেই ভালো ছিল না বলে জানান প্রতিবেশীরা। এমনকি আশিসের ঘর থেকে প্রচুর মদ, বিয়ারের বোতল, অশ্লীল ছবি দেখতে পাওয়া গিয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঘটনার পর ঐ কিশোরী বাড়িতে গিয়ে কাঁদতে কাঁদতে সব কথা জানায়। এরপরি প্রতিবেশীরা অভিযুক্তের বাড়িতে চড়াও হয় এবং অভিযুক্তকে ঘেরাও করে মারধরও করেন। পরে পুলিশ গিয়ে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে। বুধবার যেহেতু কোর্ট ছুটি ছিল তাই স্পেশাল কোর্টে অভিযুক্তকে তোলা হয়। আজ বৃহস্পতিবার ফের তাঁকে কোর্টে হাজির করিয়ে পুলিশ নিজেদের হেফাজতে নেবে বলে জানায়। এদিকে চিকিৎসক না থাকায় কিশোরীর শারীরিক পরীক্ষাও করা সম্ভব হয়নি। ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ৪ নম্বর ওয়ার্ড জুড়ে।

এব্যাপারে ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কাজলমনি মুর্মু বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করছে।