“মমতাকে সরাতে সিপিএম-এর সঙ্গে জোট করেছিল কংগ্রেস, একমাত্র আমিই এর বিরোধিতা করেছিলাম” : মানস

0
498
ফাইল চিত্র
Advertisement

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ সিপিএম, বিজেপি, বঙ্গীয় কংগ্রেসের মিলিত শক্তি  বাংলার শান্তি বিঘ্নিত করার চেষ্টা করছে। বাংলার মানুষের জোটের কাছে সেসব অপচেষ্টা প্রতিহত হবে। বৃহষ্পতিবার গড়বেতা অডিটোরিয়ামে তৃণমূল কংগ্রেসের এক রাজনৈতিক কর্মী সম্মেলনে একথা বলেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ মানস ভুঁইয়া।

তিনি ছাড়াও এদিন সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা তৃণমূল সভাপতি অজিত মাইতি। এদিন মানস ভুঁইয়া বলেন, তৃণমূলের একজনই নেত্রী, তিনি মমতা ব্যানার্জি, আমরা সব কর্মী। মমতা ব্যানার্জির উন্নয়নের সুফল বাংলার মানুষ পাচ্ছেন, বাংলায় শান্তি স্থাপিত হয়েছে। এই শান্তিটাই কেড়ে নিয়েছিল সিপিএম। মমতাকে সরাতে এই সিপিএমের সঙ্গে জোট করেছিল কংগ্রেস। কংগ্রেসে থেকে একমাত্র আমিই এর বিরোধিতা করেছিলাম রাহুল গান্ধীর কাছে।

মানস ভুঁইয়া এদিন অভিযোগ করেন, একসময় রাজ্য বিধানসভায় আমি টানা ২২ দিন আলাদা ছিলাম, আমাকে একগ্লাস জল পর্যন্ত দেননি কংগ্রেসের পরিষদীয় নেতা। মানসবাবু এদিন বলেন, সিপিএমের আমলে আলিমুদ্দিন থেকে পুলিস কন্ট্রোল হত, বুদ্ধবাবুর ক্ষমতা ছিল না। এদিন সভায় জেলা সভাপতি অজিত মাইতি দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘ গা জোয়ারি রাজনীতি করলে একদিন সিপিএমের মতো হতে হবে। তৃণমূলে অনেক লোক আছে, ঝান্ডা ধরার জন্য ২-৪ টা গুন্ডা বদমায়েশ না থাকলেও চলবে। ‘ তিনি দলীয় কর্মীদের দলীয় শৃঙ্খলা মেনে কাজ করার পরামর্শ দিয়ে বলেন, ‘ বেশি ফাউল করলে আর হলুদ কার্ডে কাজ হবে না, একেবারে লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠ থেকে বের করে দেওয়া হবে।’ গড়বেতা বিধানসভা কেন্দ্রের ১৬ টি অঞ্চলের দলীয় কর্মীদের নিয়ে এই সভা হয়। বক্তব্য রাখেন গড়বেতার বিধায়ক আশিস চক্রবর্তী, দলের জেলা কার্যকরী সভাপতি নির্মল ঘোষ, শালবনির বিধায়ক শ্রীকান্ত মাহাত, দুলাল মণ্ডল, সেবাব্রত ঘোষ প্রমুখ।

Advertisement