যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত হল দুই মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামে

0
4757

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দুই মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম জেলায় নানান কর্মসূচি পালিত হয়। দিনটি উপলক্ষ্যে শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে মহিলাদের নিয়ে নানা অনুষ্ঠান করা হয়। এদিন ১৮ নম্বর ওয়ার্ড শিক্ষা কমিটির উদ্যোগে স্থানীয় পালবারিতে অনাথবন্ধু পাঁজা আদিবাসী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শতাধিক মহিলাকে নিয়ে দিনটি পালন করা হয়। অঙ্গলনোয়াড়ি কর্মী, শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের সহায়িক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা ও ওয়ার্ডে যাঁরা সাফাইয়ের কাজে যুক্ত সেই মহিলাদের সম্মান জানানো হয়। ফুল, মিষ্টি ও ফোঁটা দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। ছাত্রছাত্রীরা নাচ-গান অরিবেশন করে। বক্তব্য রাখেন শিক্ষা কমিটির সভাপতি তথা কাউন্সিলর সৌমেন খা, কমিটির সচিব মনোতোষ প্রামাণিক, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা রাধারানী চক্রবর্তী, অঙ্গনওয়াড়ি সাহায়িক গোপা প্রধান, শিশুশিক্ষা কেন্দ্রে সহায়িকা শবনম মানু, রাধুনি সুতপা নায়েক, মনুয়া বেগম, পারুল বিবি প্রমুখ। সকল বক্তাই মহিলাদের সামাজিক ক্ষেত্রে এগিয়ে এসে কাজ করা আহ্বান জানান। শহরের অন্যান্য ওয়ার্ডগুলিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনটি পালন করা হয়। নারী দিবস উপলক্ষে মহিলা সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শহরের রবীন্দ্র মূর্তির পাদদেশে সভা করা হয়, পরিচারিকা সমিতির একটি সুসজ্জিত মিছিল ওই সভায় যোগ দেয়

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে কাজলা জনকল্যান সমিতির উদ্যোগে কাঁথি বীরেন্দ্র স্মৃতি সৌধে মহিলা স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্যাদের নিয়ে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলো. সম্মেলনের বিষয়বস্তু হলো সমাজে লিঙ্গ সমতা প্রতিষ্ঠায় মহিলাদের ভূমিকা. প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন কাঁথি মহকুমা শাসক শ্রী শুভময় ভট্টাচার্য মহোদয়. প্রারম্ভিক বক্তব্য রাখেন কাজলা জনকল্যান সমিতির সাধারণ সম্পাদক স্বপন পন্ডা. তিনি আন্তর্জাতিক নারী দিবসের তাৎপর্য ব্যাখ্যা করেন এবং বলেন লিঙ্গ সমতার জন্য বাড়ি থেকে অভ্যাস করা প্রয়োজন. উদ্বোধক মহকুমা শাসক বলেন সমাজে লিঙ্গ সমতা প্রতিষ্ঠা করতে হলে নারী ও পুরুষের মধ্যে দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন আনা. সমাজে নারীদের ক্ষমতায়নে সরকারিভাবে নানান উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে, নারীরাও বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন, কিন্তু এখনো সমাজে লিঙ্গ সমতা নেই. আমরা নারীদের অবজ্ঞা করি. এরথেকে মুক্তি পেতে নিজেদের আচার আচরণ ও দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন ঘটাতে হবে. এই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন শ্রীমতি অলি বিশ্বাস(সরকার) ও হারাধন মুখোপাধ্যায়, অতিরিক্ত জেলা ও সেশন জজ, কাঁথি আদালত, শ্রীমতি আত্রেয়ী মান্না চৌধুরী ও শ্রীমতি সপ্তমীতা দাস, সিভিল জজ কাঁথি আদালত, কাঁথি মহিলা থানার ওসি চিত্রলেখা মন্ডল,  কাজলা জনকল্যান সমিতির সহ সভাপতি আকবর আলী খান, সত্যরঞ্জন দাস,বিজন মাইতি এবং দলনেত্রী চৈতালি পয়ড়া, শ্যামলী পাল, রেখা বেরা প্রমুখ. সম্মেলনে প্রায় ১০০০ মহিলা উপস্থিত ছিলেন. অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন মহিলা স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্যা শ্রীমতি সীতা নন্দ মহোদয়া.

আন্তঃর্জাতিক নারী দিবসে দুদিনের বিশেষ নারী সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানের আয়োজন করলো মেদিনীপুর এ্যাসোসিয়েশন ফর ভলান্টারীএ্যাকশন( মাভা)। এই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সারাবছর পিছিয়ে পড়া ছেলেমেয়েদের পড়াশোনা থেকে বিভিন্ন প্রশিক্ষনের মাধ্যমে স্বনির্ভর করে আর্থিক উন্নতি ঘটানোর চেষ্টা চালিয়ে যায় এই সংস্থা।দীর্ঘ ৩৮ বছর ধরে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে আসছে মাভা নামক সংস্থাটি।তবে আন্তর্জাতিক নারীদিবসে প্রতিবছরের মতো এবছরো নারীসচেতনতার উদ্দেশ্যে দুদিন ব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।নারীদের নিয়ে সেমিনার,ছবি আঁকা প্রতিযোগিতা, নাচ,গান,আবৃত্তি,পুতুলনাচ সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।সংস্থার সম্পাদক সুমিত্রা পাত্র জানান,আমরা ১৯৯০ সাল থেকে নারীদের জন্য বিভিন্ন বিষয়ের উপর আন্দলোন থেকে শুরু করে আর্থিক স্বনির্ভরের লক্ষে এছাড়াও সমাজে পিছিয়ে পড়া মেয়েদের পড়াশোনা আর্থিক অভাবে বন্ধ হয়ে গেলে তাদের পড়াশোনার জন্য নানাভাবে সহায়তা করা হয়।সারাবছর বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করা হয়।এদিন স্থানীয় মহিলাদের নিয়ে সারাদিন চলে নানান অনুষ্ঠান।শুক্রবারো চলবে বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান।এই অনুষ্ঠানে স্থানীয় বহু মহিলা অংশ নেয়।

খড়গপুর, নারায়ণগড়, কেশিয়াড়ি, ঘাটাল, ডেবরা সহ জেলার অন্যান্য জায়গায় দিনটি পালন করা হয়। ঝারগ্রাম ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলাতেও বিভিন্ন সংস্থার পক্ষ থেকে নারী দিবস পালন করা হয়।