দলমার দামালদের দাপটে সন্ত্রস্ত ৩টি ব্লকের জঙ্গলঘেষা গ্রাম গুলি, দিশেহারা বনদফতর

0
121

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ খাবারের সন্ধানে ঝাড়গ্রাম হয়ে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় প্রবেশ করেছে শতাধিক হাতি। ছোটবড় অনেকগুলি দলে ভাগ হয়ে তারা শালবনি, চন্দ্রকোনা রোড ও গোয়ালতোড় ব্লকের বিভিন্ন জঙ্গলে ঘাটি গেড়েছে। মর্জিমাফিক চলাফেরা করছে দাঁতালেরা। মাঝেমধ্যেই খাবারের সন্ধানে তারা চলে আসছে লোকালয়ে, ক্ষেতখামারে। এতেই আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন গ্রামবাসীরা। যদিও বনদপ্তর থেকে অযথা আতঙ্কিত না হয়ে মানুষকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। ইতিমধ্যেই হাতির আক্রমণে গোয়ালতোড় ও শালবনিতে ২ জন জখম হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বনদপ্তরের মেদিনীপুর বিভাগ সুত্রে জানা গেছে, রবিবার হাতিগুলি রয়েছে আড়াবাড়ি রেঞ্জের আটাবাঁধার জঙ্গলে ৫০-৬০ টি, ধানঘোরীর জঙ্গলে ২৫ টি, নয়াবসত রেঞ্জের সিদাডিহি বিটের নিশ্চিন্তিপুর জঙ্গলে ২৫ টি। এছাড়া আকছড়ার জঙ্গলে ৩ টি, কামরাঙ্গি, পাথরিতে ৪ টি, গোয়ালতোড়ের দুধপতরি জঙ্গলে ৩ টি হাতি রয়েছে। জানা গেছে, গত বুধ ও বৃহস্পতিবার কয়েকদফায় হাতিগুলি ঝাড়গ্রামের জঙ্গল থেকে চাঁদড়া, গুড়গুড়িপাল হয়ে একটি দল ঢুকেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায়। আর একটি দল লালগড় হয়ে শালবনির পীড়াকাটা, অভয়া, সিদাডিহির জঙ্গলে ঢুকে। অন্য একটি দল লালগড়ের রামগড়ের জঙ্গল থেকে গোয়ালতোড়ের দুধপতরির জঙ্গলে প্রবেশ করে। এই জেলায় ঢুকে খাবারের সন্ধানে তারা কয়েকটি ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে যায়। এতেই আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন শালবনি, চন্দ্রকোনা রোড, গোয়ালতোড় এমনকি মেদিনীপুর সদর ব্লকের ২০-২২ টি গ্রামের বাসিন্দা। বিভিন্ন দলে ভাগ হওয়া হাতিগুলি ইতিমধ্যেই বহু শস্য ও ফসলহানি করেছে। নষ্ট করেছে বিঘার পর বিঘা জমির ধান। ক্ষয়ক্ষতির হিসাব রাখছে বনদপ্তর। ক্ষোভ বাড়ছে মানুষের।