সরকারি কর্মচারী হওয়া সত্বেও ঘর পেলেন একজন, পুরপ্রধান বললেন অন্যায় হয়েছে

0
627
পত্রিকা প্রতিনিধিঃ সরকারি কর্মচারী হওয়া সত্বেও ‘হাউস ফল অল’ প্রকল্পে ঘর পেয়ছেন শহরের ১১ নম্বর ওয়ার্ডের এক ব্যাক্তি। যা নিয়ে তোলপাড় চলছে। সরকারি কর্মচারি কী ভাবে সরকারি প্রকল্পে ঘর পেয়েছেন তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।
১১ নম্বর ওয়ার্ডে হাউস ফর অল প্রকল্পে ঘর পেয়েছেন সানু বেহারা। তিনি একজন সরকারি কর্মচারী। ওই ঘর ছাড়াও তাঁর আরও একটি ঘর রয়েছে ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে চিড়িমারসাইতে। ওয়ার্ডটি কাউন্সিলর শূন্য হওয়ায় উন্নয় দেখভাল করে ওয়ার্ড উন্নয়ন কমিটি। সরকারি কর্মচারীর সরকারি ঘর পাওয়া নিয়ে পুরপ্রধান প্রণব বসু বলেন যদি সরকারি কর্মচারী এইভাবে ঘর পেয়ে থাকেন তাহলে অন্যায় হয়েছে। ঘরটি তৈরি করা অবৈধ। এনিয়ে কংগ্রেস কাউন্সিলর শম্ভুনাথ চ্যাটার্জী বলেন, যিনি ঘরটা পেয়েছেন, তাঁর নেওয়া উচিত হয়নি। সমীক্ষাতে কোনও কারণে ভূল হলেও ঐ সরকারি কর্মচারীর বলা উচিত ছিল তিনি চাকরি করেন। পুর কর্তৃপক্ষের কোনও কারণে চোখ এড়িয়ে গিয়েছে।
উল্লেখ্য, পুরসভার তিনটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর নেই। সেগুলি হল ১৯, ১৭ এবং ২১ নম্বর ওয়ার্ড। ওই ওয়ার্ডগুলির উন্নয়ন দেখভান করে ওয়ার্ড উন্নয়ন কমিটি। পুরপ্রধান সাফ বলেন। “ওই ওয়ার্ডগুলির ঘর তৈরি নিয়ে আমি তালিকা তৈরি করিনি। যাঁরা তালিকা তৈরি করে ঘর পাইয়ে দিয়েছেন তাঁরা অন্যায় করেছেন। এভাবে ঘর তৈরি করা অবৈধ।