গভীর রাতে কনকাবতী পঞ্চায়েত অফিসের কাছে হাতির হামলায় যুবকের মৃত্যু, তদন্তে পুলিশ

0
829

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ হাতির আক্রমণে ম্রৃত্যু হল এক ব্যাক্তির। মৃতের নাম, সঞ্জয় রানা (২৮)। ঘটনাটি ঘটেছে সদর ব্লকের গুড়গুড়িপাল থানার অন্তর্গত কনকাবতী এলাকায় । মৃতের বাড়ি কনকাবতী গ্রামে। জানা গিয়েছে বৃহস্পতিবার রাত ১টা নাগাদ কনকাবতী পঞ্চায়েত অফিসের কাছে ছিলেন ঐ যুবক। হঠাৎ হাতির আক্রমণে পড়েন তিনি। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে আসা হয় । সেখানেই তাঁর মৃত্যু ঘটে। রাত একটার সময় সঞ্জয় কেন ওই জায়গাতে গিয়েছিলেন তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। বনদফতর সূত্রে খবর, দলমা থেকে আসা প্রায় ৫০টি হাতির একটি বড় দল এই মুহুর্তে লালগড়ের জঙ্গলে রয়েছে। সেখান থেকেই ছড়িয়ে ছিটিয়ে বেরিয়ে আসছে এক একটি হাতির ছোট দল। কনকাবতী এলাকায় তিনটি হাতি ঢুকেছিল বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। তিনটি হাতির পায়ের ছাপও পাওয়া গিয়েছে। তারা এখন চাঁদড়ার জঙ্গলে আশ্রয় নিয়েছে। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে সঞ্জয়ের বুকের ওপর হাতিটি পা মাড়িয়ে দিয়েছিল। যার ফলে মুখ থেকে অনবরত রক্ত বের হতে থাকে। ডি এফ ও রবীন্দ্রনাথ সাহা জানিয়েছেন ঐ হাতিগুলিকে লালগড়ের জঙ্গলে পাঠানোর চেষ্টা চলছে । এর পাশাপাশি সতর্কও করা হয়েছে গ্রামবাসীদের। কিন্তু বন দফতরের নির্দেশ উপেক্ষা করে গ্রামবাসীরা রাতে বিরেতে অনেকেই প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে বেরিয়ে পড়ছেন। সঞ্জয় রানাও এদিন রাতে বেরিয়ে ছিল। যার মূল্য নিজের প্রাণ দিয়ে তাকে চোকাতে হল। কি কারণে সঞ্জয় বেরিয়ে ছিলেন তা তদন্ত করছে পুলিশ। পুলিশ মৃতদেহ ময়না তদন্তে পাঠিয়েছে। এদিন রাতে হাতির দল কনকাবতী, লালগড় সহ অন্যান্য জায়গায় কয়েকটি বাড়িতেও হামলা চালায় বলে বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে।