দিলীপ ঘোষের স্বপ্ন পূরণ হবে না, মনোনয়ন জমা দিয়ে বললেন মানস ভূঁঞ্যা

0
249

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ কেউ যদি দিবা স্বপ্ন দেখতে চান দেখুন। কিন্তু সে স্বপ্ন পূরণ হবে না। নাম না করে বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষকে এভাবেই আক্রমণ শানিয়েছেন মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মানস ভূঞ্যা। সোমবার মনোনয়ন জমা দেওয়ার পর, বিজেপির রাজ্য সভাপতির উদ্দেশে মানসের কটাক্ষ, কেউ যদি বকবক করার জন্য কথা বলেন, তবে তিনি শুধু তাঁর করুণা পেতে পারেন। উল্লেখ্য, শনিবার মেদিনীপুর কেন্দ্রের জন্য মনোনয়ন জমা দিয়ে ভোটে জিতে গিয়েছেন বলে ঘোষণা করেছিলেন বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষ। প্রিয় রঙ বাসন্তি রংয়ের পাঞ্জাবি পরে, সোমবার মেদিনীপুরের জেলা শাসক পি মোহন গান্ধীর কাছে নিজের মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার পর বিজেপির রাজ্য সভাপতিকে জবাব দেন মানসবাবু। তিনি জানান, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের ৪২টি আসনেই জেতার কথা বলেছেন। তাই মেদিনীপুর কেন্দ্র জিতে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমোকে তা উপহার হিসেবে দেতে চান তিনি। মেদিনীপুর সবং থেকে সাতবার ভোটে জিতে বিধায়ক হন মানস ভূঞ্যা। ২০১৬ সালে বিধায়ক হওয়ার পর তিনি কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমুলে যান এবং রাজ্যসভার সাংসদ হন। ২০১৪ সালের লোকসভা উপনির্বাচনে ঘাটার কেন্দ্র থেকে কংগ্রেসের হয়ে লড়াই করেছিলেন মানস ভূঞ্যা। তাই এবার জয়ের ব্যাপারে একশো শতাংশ আশাবাদী মানসের বক্তব্য, ফুটবল তাঁর প্রিয় খেলা। ভোটের লড়াইতেও তিনি গোল করে জিততে চান। সোমবার মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার পর মেদিনীপুরে একটি রোড শো করেন মানসবাবু।

শহরের ফেডারেশন হলের সামনে মানসবাবুকে ঘিরে বহু দলীয় নেতা-কর্মী ভিড় করেছিলেন তখনই খবর আসে হোসেনাবাদে দুর্ঘটনায় দলীয় দুই কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। তারপরই মনোনয়নপত্র দাখিলের আগে যে মিছিলের কর্মসূচি নেওয়া হয়েছিল তা বাতিল করা হয় । মানসবাবু ছাড়াও অন্যান্য নেতৃত্ব পায়ে হেঁটে কালেক্টরেট চত্ত্বরে যান এবং মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। সেখান থেকে ফের ফেডারেশন হলের সামনে ফিরে এসে সংক্কিপ্ত বক্তব্য রাখেন। মানসবাবুর মনোনয়ন দাখিল পর্বে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র, দলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি, জেলা পরিষদের সভাধিপতি উত্তরা সিংহ, যুব নেতা রমাপ্রসাদ গিরি, শহর সভাপতি বিশ্বনাথ পাণ্ডব, প্রণব বসু, শ্যামপদ পাত্র, নির্মাল্য চক্রবর্তী প্রমুখ।