বাসস্ট্যাণ্ডের ভ্যাটের জায়গায় লিজ, দোকানঘর তৈরিতে বাধা, উত্তেজনা

0
473
পত্রিকা প্রতিনিধিঃ মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় বাসস্ট্যাণ্ডের ভিতর একটি ভ্যাটের জায়গা পুরসভা লিজ দিয়ে দিয়েছে। সেই জায়গার উপর দোকানঘর তৈরি করতে গেলে উত্তেজনা বাড়ে। অন্যান্য ব্যবসায়ীরা ঐ ভ্যাটের জায়গায় ঘর তৈরি করতে বাধা দেন। ব্যাবসায়ীদের অভিযোগ, বড় ভ্যাটের একটা অংশ আগেই লিজ দিয়েছিল পুরসভা। এখন বাকি জায়গা লিজ দিয়ে  ভ্যাটটি তুলে দিতে চাইছে। এতে আবর্জনা ফেলার চরম সমস্যা হচ্ছে। বাসস্ট্যাণ্ডের মধ্যে ওটাই ছিল সবচেয়ে বড় ভ্যাট। ঐ এলাকার সমস্য ব্যবসায়ী এমন কী হোটেলগুলির আবর্জনা ফেলা হত ভ্যাটটিতে। বছর খানেক আগে ভ্যাটের একটা অংশ পুরসভা লিজ দিয়ে দেয়। সেখানে যিনি লিজ পেয়েছেন, তিনি ঘর তৈরি করে ফেলেছেন। পরে ভ্যাটের বাকি অংশটাও তিনি পুরসভা থেকে লিজ পেয়ে যান। সেই জায়গায় ঘর তৈরি করতে গেলে পার্শ্ববর্তী ব্যবসায়ীরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। সম্প্রতি বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ী ভ্যাটটি লিজ দেওয়ার প্রতিবাদ জানিয়েছে পুরপ্রধান প্রণব বসুকে ডেপুটেশন দেন। দাবি জানান, ভ্যাটটি এভাবে তোলা যাবে না। এতে বাসস্ট্যাণ্ডের সমস্ত ব্যবসায়ীর সমস্যা হবে। আবর্জনা ফেলা নিয়ে সবাইকে ভুগতে হবে। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, তাঁদের দাবিদাওয়াকে বিবেচনা না করেই পুরসভা একতরফা ভাবে ভ্যাটটি তুলে দিতে চাইছে। তাই ধাপে ধাপে জায়গাটি লিজ দিয়েছে পুরসভা। লিজ পেলেও ঐ জায়গায় ঘর তৈরি করতে দিচ্ছে না ব্যবসায়ীরা। ফলে ঘর তৈরি বধ রয়েছে। যদিও পুরপ্রধান প্রণব বসু বলেন, কেন্দ্রীয় বাসস্ট্যাণ্ডটি সাজিয়ে-গুছিয়ে তোলার কাজ অনেক দিন ধরে হচ্ছে। সেজন্য বাসস্ট্যাণ্ডের ভিতরে থাকা ভ্যাটটি সরিয়ে দেওয়া জরুরি ছিল। ঐ জায়গায় ভ্যাটটি তুলে দিলেও বাসস্ট্যাণ্ডের ঠিক বাইরে নতুন করে ভ্যাট তৈরি করা হয়েছে। ব্যবসায়ী থেকে হোটেলগুলি সেখানে আবর্জনা ফেলতে পারবে। আবর্জনা ফেলা নিয়ে কোনও সমস্যা হবে না। সৌন্দর্যায়ন করতে বাসস্ট্যাণ্ডের ভিতর থাকা ভ্যাটটি সরানো হয়েছে বলেও পুরপ্রধান জানিয়েছেন।