বাজারে বৈদ্যুতিক আলোর নানা জিনিস ঘুম কেড়েছে ঝাড়গ্রামের বেড়াগাড়ী গ্রামের মৃতশিল্পীদের

0
404

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ মাটির প্রদীপের চাহিদা কমলেও হাল ছাড়েননি ঝাড়গ্রামের মৃতশিল্পীরা। মৃৎশিল্পীরা পুজোর নানা উপকরণের সঙ্গে মাটির প্রদীপ তৈরি করে আসছেন বংশ পরম্পরায়। কিন্তু বর্তমান সময়ে বিভিন্ন ধরনের আধুনিক বৈদ্যুতিক বাতি বাজারে চলে আসায় প্রাচীন সেই মাটির প্রদীপ হারি যেতে বসেছে। কিন্তু বাজারে সেই প্রদীর কম চাহিদা থাকায় প্রায় বন্ধের মুখে এই শিল্প। বেড়াগাড়ি গ্রামে ৬০থেকে ১০০ পরিবার আগে এই পেশার সঙ্গে যুক্ত ছিল এখন সেটা কমে দাঁড়িয়েছে ২০টি পরিবারের এই পেশার সঙ্গে যুক্ত। ঝাড়গ্রাম জেলার বেড়াগাড়ী গ্রামে মৃতশিল্পীরা দীপাবলিকে সামনে রেখে ব্যাস্ত নানা ধরনের প্রদীপ তৈরি করতে। তবে বেশ কিছু মৃতশিল্পীর গলায় আক্ষেপের সূর। তারা বললেন, আজকালকার ডিজিটাল যুগে যে হারে চায়না লাইট, টুনি বাল্ব ও নানা ধরনে এল ই ডি লাইট বাজারে এসেছে সেই তুলনায় হাতে গড়া মাটির প্রদীপের বিক্রি কমেছে। লাভ কম হলেও কুমোরদের আশা এই বছর তাঁরা লাভের মুখ দেখবেন। তাঁরা আরও বলেন, বর্তমানে মাটির ও খড়ির দামও বেড়েছে। কিন্তু প্রদীপের দাম বাড়ছে না। যা কোনও রকম খাওয়া খরচাটা ওঠে। আগামী দিনে মাটির প্রদীপের চাহিদা বাড়বে বলে আশাবাদী বেড়াগাড়ী গ্রামের মৃৎশিল্পীরা।