আনিসুরকে পুরপ্রধান পদে পুনর্বহালের নির্দেশ আদালতের

0
313

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ পাঁশকুড়া পুরসভার অপসারিত পুরপ্রধান আনিসূর রহমাঙ্কে পুনর্বহাল করার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। দল বিরোধী কাজকর্ম করার অভিযোগে আনিসূরকে সরিয়ে নন্দকুমার মিশ্রকে পুরপ্রধান করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত বোর্ড। পুরসভার আইন মেনে তাঁকে অপসারন করা হয়নি। এই অভিযোগে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন আনিসূর সহ ৪ কাউন্সিলর। বুধবার এই মামলার শুনানি চলাকালিন সূব্রত তালুকদারের বেঞ্চ পুর ও নগরোন্নয়ন বোর্ডের সেই বহিস্কারের নোটিস খারিজ করে ফের আনিসুরকে পুরপ্রধান পদে বহাল করার নির্দেশ দিয়ছে। বিচারপতি জানিয়েছেন যে পদ্ধতিতে আনিসূরকে পুরপধান পদ থেকে আপসারণ করা হয়েছে তা সঠিক নয়। এদিন বিচারক দুই পক্ষের বক্তব্য শোনার পর বেঞ্চ নিজের পর্যবেক্ষণে জানায়, পুরবোর্ড যেভাবে আনিসূরবাবুকে নোটিশ দিয়ে পদ থেকে সরিয়েছে তা সঠিক পদ্ধতি নয়। পুরপ্রধানকে পধ থেকে সরাতে গেলে বেশ কিছু পদ্ধতি রয়েছে। এক্ষেত্রে তা পালন করা হয়নি। এরপর বেঞ্চ জানায় কোনও নির্বাচিত প্রতিনিধিকে এভাবে সরিয়ে দিতে পারে না সরকার। তাই পুরবোর্ডের সেই নোটিশ খারিজ করে আনিসুরবাবুকে পদে ফেরানোর  নির্দেশ দিয়েছে উচ্চ আদালত। প্রসঙ্গত, তৃণমূল পরিচালিত পুরবোর্ড এতদিন নিজের কাজ চালানোর অভিযোগ উঠেছিল আনিসূর রহমানের বিরুদ্ধে। পাশাপাশি তাঁর পালটা অভিযোগ ছিল যে, বেশ কিছু কাউন্সিলর তাঁকে কাজ করতে দিচ্ছেন না। তাই এস ডি পি ও এবং জেলাশাসকের কাছে নিজের পদত্যাগপত্রও পাঠিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। তবে এস ডি পি ও  দফতর থেকে তাঁকে জানিয়ে দেওয়া হয় যে, তাঁর দেওয়া পদত্যাগপত্র পদ্ধতিগত ত্রুটি রয়েছে। তা সংশোধন করে ফের পাঠাতে হবে। যদিও পরে তিনি সংশ্লিষ্ট দফতরে পদত্যাগ পত্রটি আর  সংশোধন করে পাঠান নি। এরপর ২৩ নভেম্বর আর্বান মিউনিসিপ্যাল অ্যাফেয়ার্স- এর যুগ্ম সম্পাদকের তরফ থেকে নোটিশ মারফৎ তাঁকে জানিয়ে দেওয়া হয় যে আনিসুরবাবুকে আর পুরপ্রধান হিসাবে থাকতে হবে না। পুরবোর্ডের সেই নোটিশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সম্প্রতি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন আনিসুর রহমান সহ চার কাউন্সিলর। তবে এই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ডিভিশ্ন বেঞ্চে মামলা দায়ের করতে চলেছে পাঁশকুড়া পুরবোর্ড।