রাজ্যের ৪০টি দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকার মধ্যে চারটি এই জেলাতে-পুলিশ সুপার

0
953

দুর্ঘটনা রোধে আইন মেনে পথ চলার পরামর্শ জেলাশাসক, পুলিশ সুপারের

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ রাজ্যের সবচেয়ে দুর্ঘটনাপ্রবণ ৪০টি থানা এলাকার মধ্যে এই পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ৪টি থানা রয়েছে। এই তথ্য দিলেন জেলা পুলিশ সুপার আলোক রাজোরিয়া। শুক্রবার কালেক্ট্রেটের সামনে ‘সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ’ এর পথ সচেতনতা কর্মসূচীর সূচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে পুলিশ সুপার বলেন, জেলা ব্যাপী পথ সচেতনতায় পুলিশকে উদ্যোগ নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পথ দুর্ঘটনা কমাতে সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ-এর গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচী গ্রহণ করেছেন। তিনি এই জেলার দায়িত্বে আসার পর সমস্ত জায়াগায় মানুষকে নিয়ম মেনে রাস্তা হাঁটতে ও সচেতন করতে পুলিশের প্রচারের গতি বাড়ানো হয়েছে। ফলে হেলমেট পরে বাইক চালানোর প্রথণতা বেড়েছে। পুলিশ সুপার ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, এতসব প্রচার সত্বেও কেউ কেউ পথ চলার নিয়ম মানছেন না। এমনভাবে রাস্তা হাঁটছেন যেন তাঁরা বাড়িতে হাঁটছেন। কিছু বাইক চালকের হেলমেট পরতেও অনীহা। এসব করা যায় না। পুলিশ এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। 

     পুলিশ সুপার দুর্ঘটনার পরিসংখ্যান দিয়ে বলেন, রাজ্যের সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনাপ্রবণ ৪০ থানা এলাকার মধ্যে পশ্চিম মেদিনীপুরে চারটি থানা রয়েচে। এর মধ্যে বিগত বছরে সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ঘটে খড়গপুর লোকাল থানা এলাকায়, বছরে ১৬৭টির মতো। এছাড়া কোতোয়ালি থানা এলাকায় ১২৫টি, গড়বেতা ৭০টি এবং শালবনিতে ৭২টি দুর্ঘটনা ঘটে। আলোকবাবু বলেন, দুর্ঘটনা কমাতে জেলার ১৮টি জায়গায় ট্রাফিক গার্ড তৈরি করা হয়েছে। এজন্য ৭৬২জন সিভিক ভলেন্টিয়ার নিয়োগ করা হয়েছে। তাঁদের প্রথম পর্যায়ের প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে। পরে হেড কোয়ার্টার থেকে এদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এছাড়া রোড সেফটি কমিটি করা হয়েছে, প্রতি মাসে মিটিং করা হচ্ছে। মূল্ লক্ষ্য দুর্ঘটনার সংখ্যা কমানো এবং সবাইকে আইন মেনে পথ চলতে সচেতন করে চলা। এব্যাপারে জনসচেতনতা গড়ে তুলতে সংবাদ মাধ্যমেরও সহযোগিতা চেয়েছেন পুলিশ সুপার। 

    জেলা শাসক তাঁর বক্তব্যে সেফ ড্রাইভ কর্মসূচিতে পুলিশ সুপারের উদ্যোগকে সাদুবাদ জানান। তিনি বলেন, সবাইকে আইন মেনে রাস্তা চলাচল ও গাড়ি চালাতে হবে। মুখ্যমন্ত্রীর গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পকে মেনে পথ চলা জরুরী। একই মত পোষন করেন সদর মহকুমা শাসক দীপনারায়ণ ঘোষ। 

    এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শচীন মক্কর, জেলা তথ্য সংস্কৃতি আধিকারিক অনন্যা মজুমদার, কোতোয়ালি থানার আই সি বিভাস মণ্ডল সহ আরও অনেকেই ।