অতঃপর কংগ্রেসের জেলা সভাপতি নিয়ে বাড়ল জল্পনা- অধীরকে সরিয়ে নতুন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র, জানাল এ আই সি সি

0
374
ছবিঃ ওয়েব ডেস্ক

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বদল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জেলায় কে হবেন নতুন সভাপতি সেই নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। শুক্রবার এ আই সি সি এক প্রেস বিবৃতিতে অধীর চৌধুরীকে সরিয়ে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি হিসাবে সোমেন মিত্রে নাম ঘোষণা করেছে। একই সঙ্গে সমন্বয় কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে প্রদীপ ভট্টাচার্যকে। কার্যকরী সভাপতি হিসাবে চারজনকে রাখা হয়েছে। তাঁরা হলেন শঙ্কর মালাকার, নেপাল মাহাত, আবু হোসেন খান চৌধুরী ও দীপা দাসমুন্সি। অধীর চৌধুরীকে রাখা হয়েছে প্রচার কমিটির চেয়ারম্যান হিসাবে। সোমেন মিত্র প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি হওয়ায় পুরনো কর্মীরা আবার নতুন করে দলের কাজে ঝাঁপিয়ে পড়তে পারেন বলে সকলের ধারনা। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলাতে ‘অ্যাডহক’ হিসাবে সভাপতি রয়েছেন সমীর রায়। সমীর বিরোধী গোষ্ঠীর দলীয় নেতাদের অভিমত, এবার প্রদেশ কংগ্রেস কমিটি জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনা করে নতুন কাউকে জেলা সভাপতি করবেন। যার মূল লক্ষ্য দলের সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি করা। কংগ্রেস নে৩তা অনিল শিকারিয়া সাফ জানান, “এবার প্রদেশ নেতৃত্ব জেলাতে নতুন কাউকে সভাপতি করবেন সবার সঙ্গে আলোচনা করেই। জেলা থেকে এক জনেরই নাম সভাপতি হিসাবে পাঠানো হবে। এতদিন যে অ্যাডহক সভাপতি রয়েছেন তাতে এ আই সি সি-র অনুমোদন ছিল না। তাই ওই সভাপতি কিংবা জেলা কমিটির কোনও ক্ষমতাই ছিল না। তাই আমরা প্রতিবাদও করিনি। এবার জেলা ও ব্লক কমিটি নতুন করে গড়ে তোলা হবে তাতে জনপ্রতিনিধিদের স্থান অবশ্যই থাকবে বলে আমরা মনে করি। অনিলবাবু বলেন, এতদিন অ্যাডহক কমিটি জনপ্রতিনিধিদের দূরে সরিয়ে সংগঠন চালাচ্ছিল। এতে দল সংকুচিত হচ্ছিল। কংগ্রেসের এক গোষ্টী সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলার ‘অ্যাডহক’ কমিটি মেদিনীপুর শহর ও খড়গপুর শহরের জনপ্রতিনিধিদের বাদ দিয়ে সংগঠন চালানোয় ওই সব জনপ্রতিনিধিরা আসন্ন নির্বাচনে হয় নির্দল কিংবা অন্যদলে চলে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল। এতে দল আরও সংকুচিত হত। এবার প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব জনপ্রতিনিধিদের সংগঠনের কাজে লাগাবেন এবং তাদের সলের শক্তি বাড়বে বলে তাঁদের ধারনা।

এ আই সি সি থেকে যে প্রদেশ কংরেস কমিটি করা হয়েছে তাতে অধীরবাবু ও তাঁর গোষ্ঠীর নেতাদের কার্যত ব্রাত্য করে দেওয়া হয়েছে। অধীরবাবুকে প্রচার কমিটির চেয়ারম্যান করে দেওয়া হয়েছে। আবার আগামী লোকসভা নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে প্রদীপ ভট্টাচার্য্যকে করা হয়েচফহে সমন্বয় কমিটির চেয়ারম্যান। সমন্বয় কমিটির কনভেনর করা হয়েছে শুভঙ্কর সরকারকে। নতুন প্রদেশ কমিটি গঠনের পর জেলাতে অধীর গোষ্ঠী বিরোধীদের মধ্যে খুশির হাওয়া দেখা দিয়েছে।

এনিয়ে দলের জেলা সভাপতি সমীর রায় বলেন, “প্রদেশ নেতৃত্বের রদবদল হয়েছে। কিন্তু জেলাতে আমি যেমন সভাপতি ছিলাম, তেমন রয়েছি। আগামী দিনে এই পদে থাকবো না নতুন কেউ হবেন অনেক পরের কথা।”