যৌথমঞ্চের তৃতীয় জেলা সম্মেলন

0
79

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা বিচার বিভাগীয় কর্মচারীদের যৌথমঞ্চের তৃতীয় জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় জেলা জজ আদালত প্রাঙ্গনে। এদিন প্রায় দুই শতাধিক কর্মচারী সদর আদালত সহ পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা আদালতের অন্তর্গত বিভিন্ন মহকুমা আদালত উপস্থিত হয়েছিলেন জেলা জজ আদালতে। কর্মচারীদের মূল দাবী ছিল দীর্ঘদিন ধরে আদালতের বিভিন্ন শূন্যপদে দীর্ঘদিন নিয়োগ না হওয়ার কারণে কর্মচারীদের নিজ দায়িত্ব ছাড়া অতিরিক্ত দুটি অথবা তিনটি পদের দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে, ফলে প্রায়শই কর্মচারীদের ন্যস্ত দায়িত্ব সঠিক ভাবে সম্পাদন করতে না পারার কারণে প্রশাসনের কাছে হেনস্তার শিকার হতে হচ্ছে। দীর্ঘ তিন বছর কর্মচারী নিয়োগ পক্রিয়া বন্ধ থাকার কারণে বহু শুন্যপদের সৃষ্টি হয়েছে। যদিও মাস খানেক আগে নতুন নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হলেও নিয়োগ প্রক্রিয়া এখনও সম্পূর্ণ হয় নি। ইতিমধ্য পূর্বতণ জেলাজজের বদলীর ফলে নিয়োগ প্রক্রিয়া স্তিমিত হয়ে পড়েছে। অপরদিকে আদালত চত্ত্বরে মহিলাদের জন্য বাথরুম, পানীয় জলের ব্যবস্থা, পরিচ্ছন্ন পরিবেশ না থাকার কারণে তাদের দীর্ঘদিন ধরে সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। দ্রুত এইসব সমস্যার সমাধানের দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।

         এদিনের সভায় সভাপতিত্ব করেন বরিষ্ঠ কর্মচারী শ্রী অক্ষয় পতি, শ্রী অবিনাশ মৃধা, সেখ ফায়েজ আহমেদ মহাশয়। সভায় প্রতিবেদন পাঠ করেন শ্রী অভিজিৎ বোস। এরপর বাৎসরিক আয়ব্যায়ের হিসেব পেশ করেন যৌথমঞ্চের কোষাধ্যক্ষ শ্রী সাধন সাহু। সভায় মূল বক্তব্য রাখেন শ্রী রবীন্দ্রনাথ গুচ্ছাইত, শ্রী অভিজিৎ মল্লিক, শ্রী তপন দাসশর্মা, শ্রী পার্থ প্রতিম দাস, শ্রী অয়ন চক্রবর্তী সহ অন্যান্য ব্যাক্তিবর্গ। প্রত্যেকেই কর্মচারীদের ওপর অনেকগুলি পদের দায়িত্ব চাপিয়ে দেওয়ার কারণে অসুবিধা সহ নতুন নিয়োগ প্রক্রিয়া, বিকেয়া প্রমোশন, মৃত কর্মচারীদের বকেয়ে পাওনা ও তাদের পোষ্যদের চাকুরীর ব্যবস্থা, আদালতের কর্মচারীদের জন্য প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো উন্নয়ন নিয়ে বক্তব্য রাখেন । কর্মচারীদের অনেক ক্ষেত্রে প্রশাসনিক কর্তাব্যাক্তিদের সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে হেনস্তার শিকার হতে হয় সে বিষয়েও বক্তব্য পেশ করেন বিভিন্ন সদস্য কর্মচারী। সভা পরিচালনা করেন শ্রী পার্থ প্রতিম দাস। এদিন কর্মচারীদের জন্য “যৌথমঞ্চ” একটি স্মরনিকাও প্রকাশিত হয় কর্মচারীদের সম্মেলনে।