জামবনিতে কীর্তনের আসরে বিজেপি কর্মীকে গুলি, পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ, উত্তজনা

0
238
কার্টসিঃ ফেসবুক

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ শনিবার রাতে ঝাড়গ্রামের জামবনিতে হরিনাম সংকীর্তনের আসরে গুলিবিদ্ধ হন খগপতি মাহাতো (২২) নামে এক বিজেপি কর্মী । আশঙ্কাজনক অবস্থায় বর্তমানে তিনি কলকাতায় চিকিৎসাধীন। ঘটনাটি ঘটেছে জামবনি পঞ্চায়েত এলাকার বাঘুয়া গ্রামে। অভিযুক্তরা তৃণমূল কর্মী বলে বিজেপির অভিযোগ। ঘটনাস্থলে উপস্থিত গ্রামবাসীদের অভিযোগ, রাত ১টা নাগাদ জামবনি থানা এলাকার বাঘুরা গ্রামে হরিনাম সংকীর্তন চলাকালীন তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা বিজেপি কর্মী খগপতিকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী চরণ মান্ডি সহ অন্যান্যরা জানিয়েছেন, স্থানীয় বাসিন্দা শান্তনু মাহাতো, কবি মাহাতো ও ভানু মাহাতো হরিনাম সংকীর্তনের আসরে ঢুকে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে তার উপর হামলা চালায় এবং খুব কাছ থেকে তাঁর বুকে গুলি করে। সঙ্গে সঙ্গে রক্তাক্ত অবস্থ্যা মাটিতে লুটিয়ে পড়েন ওই বিজেপি কর্মী । এরপর ঘতনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত লোকজন আশঙ্কাজনক অবস্থ্যা রক্তাক্ত বিজেপি কর্মীকে ঝারগ্রাম সুপার স্পেশালিটি হাসপ্তালে নিয়ে আসেন। কিছুক্ষন পরে সেখান থেকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। কিন্তু সেখানেও তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকলে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ঘটনার পর রাতে ওই গ্রামে পুলিশ গেলে গ্রামবাসীরা তাদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। পুলিশের বিরুদ্ধে ঘটনাস্থলের রক্ত ধুয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুলে রাত থেকেই গ্রামের রাস্তা ঘিরে রাখেন গ্রামবাসীরা। বিজেপি কর্মীর গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় জামবনি এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে। দলীয় কর্মীর গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর পেয়ে রাতেই ঝাড়গ্রাম সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ছুটে যান বিজেপির ঝাড়গ্রাম জেলা সভাপতি সুখময় সতপথি। হাসপাতাল চত্বরে দাঁরিয়ে পুলিশ ও প্রশাসনের প্রতি ক্ষোভ উগরে তিনি বলেন, দোষীরা গ্রেফতার না হলে আইন নিজেদের হাতে তুলে নেবেন বিজেপি কর্মীরা এবং অপ্রীতিকর যে কোনও ঘটনার জন্য প্রশাসন দায়ী থাকবে। অভিযুক্তরা পলাতক বলে পুলিশ সূত্রে খবর। এব্যাপারে তৃণমূলের ঝাড়গ্রাম জেলা নেতৃত্বের বক্তব্য, ব্যাক্তিগত বিবাদের জেরে এই ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই।