চিকিৎসার গাফিলতিতে রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে বিক্ষোভ শালবনি হাসপাতালে

0
586

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ বুকে ব্যথা নিয়ে ভর্তি হওয়া এক রোগীকে ভর্তি করার পরে ইঞ্জেকশন দিতেই মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতালে মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতালে বিক্ষোভ দেখালেন মৃতের পরিজনরা। পরিবারের লোকের অভিযোগ হাসপাতালের চিকিৎসকের ভূল চিকিৎসার কারণেই মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে। জিন্দালদের হাতে এই হাসপ্তালের পরিষেবার দায়িত্ব দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হতেই মান নেমেছে পরিষেবার। যদিও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ব্যখ্যা চিকিৎসা চলাকালীন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে। জানা গিয়েছে শালবনির চকতারিনী এলাকার বাসিন্দা সিরাজ মোস্তাফা (৫০) বুকে ব্যথা ও শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন শালবনি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে।

মঙ্গলবার সকালে তাঁকে ভর্তি করা হয়। অভিযোগ, তাঁকে ভর্তি করার পর এক চিকিৎসক এসে একটু কথা বলে একটি ইঞ্জেকশন দেন। ইঞ্জেকশন দেওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যে সিরাজের মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। পরিবারের লোকেরা অভিযোগ সামান্য শ্বাস কষ্ট ছাড়া তেমন কিছু সমস্যা ছিল না সিরাজবাবুর। কিন্তু একটা ইঞ্জেকশন দেওয়ার পরই চিকিৎসক কোথাও চলে যান। পরে আমরা বুঝতে পারি মৃত্যু হয়েছে সিরাজের। আমরা নিশ্চিত ভালো করে না দেখে ভুল ইঞ্জেকশন দেওয়ার কারণেই এই ঘটনা ঘটেছে। উত্তেজিত পরিবারের লোকজন ওই চিকিতসকে খুঁজতে থাকে মারধর করার জন্য। পরিবারের অন্যান্যরা বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন হাসপাতালে। ঘটনার খবর পেয়ে সেখানে ছুটে আসে শালবনি থানার পুলিশ। কোনওভাবে বুঝিতে পরিস্থিতি সামল দেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ সরকারি থেকে বেসরকারি জিন্দালদের হাতে যাওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার মধ্যেই পরিষেবা তলানিতে ঠেকে গিয়েছে। এমন বেশ কয়েকটি গাফিলতির অভিযোগ কয়েক মাসে ধরা পড়েছে। এই বিষয়ে শালবনি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক অভিষেক মিদ্দা বলেন, ওনার হার্টের সমস্যা নিয়ে সেখানে ভর্তি হয়েছিলেন, বুকে ব্যাথা হচ্ছিল। এর জন্য প্রয়োজনীয় চিকিৎসা শুরু করা হয়েছিল। কিন্তু হঠাৎ করে হার্ট অ্যাটাক হয়ে তিনি মারা যান। পরিবারের লকেদের করা অভিযোগ অনুসারে আমরা তদন্ত করছি।