দুর্ঘটনা রোধে অডিট ব্যবস্থা

0
638

৩০তম বর্ষ, ২১৪ সংখ্যা, ১২ মার্চ ২০১৮, ২৭ ফাল্গুন ১৪২৪

রাস্তা নিয়ে এবং দুর্ঘটনা নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন এটা খুবই সদর্থক দিক। কারন এমন কোনও দিন নেই যে যেদিন পথ দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটে না। পথ দুর্ঘটোনার কারণে হতাহতের যে ছবি দেখতে পাওয়া যায় তার পিছনে নান কারণ থাকে। কোথাও রাস্তার সমস্যা, কোথাও চালকদের অসতর্কতা, মোবাইল কানে রেখে বেহুঁশ হয়ে রাস্তা পার হওয়া ইত্যাদি নানা কারনেই দুর্ঘটনা ঘটে এবং তাতে হতাহতের ঘটনা ঘটে যায়। রাজ্য সরকার বুঝতে পেরেছে অনেক সময় নিয়ম না মেনে গাড়ি চালানো, রাস্তা পারাপার হওয়া এসবও দুর্ঘটনার কারন। যেমন হেলমেট না পরে বাইক চালানো , চারচাকার গাড়িতে সিট বেল্ট না বেঁধে চাল এবং তা পাশের যাত্রী যাতায়াত করেন, এ-ও দুর্ঘটনার অন্যতম কারন। এজন্য খোদ মুখ্যমন্ত্রীর মস্তিস্ক প্রসূত দুর্ঘটনা রোধে ‘সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ’ প্রকল্প রীতিমতো সাড়া ফেলেছে রাজ্যে। পরিবহণ দফতরের নির্দেশ্মতো পুলিশ প্রশাসনের কর্মীরা রাস্তায় নেমে এই কর্মসুচি রূপায়নে বলিষ্ঠ পদক্ষেপ গ্রহণ করায় হেলমেট পরে গারি চালানোর প্রবণতা পূর্বাপেক্ষা অনেক বেড়েছে। যদি এখনও এই সরকারি নিদান অমান্য করার প্রবণতা কম নয়। এঁদের বিরুদ্ধে অভিযান আরও কঠোর করা দরকার। এছাড়াও রাজ্য সরকার দুর্ঘটনা ঠেকাতে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে সেটি হল রাস্তায় রাস্তায় নিরাপত্তার অডিট করা। কোথায় কোন রাস্তা বিপদ সঙ্কুল তা খতিয়ে দেখা হবে। কীভাবে ঐ রাস্তার উন্নয়ন ঘটানো যায় তা দেখা হবে। এজন্য পূর্ত দফতরের ব্যবস্থাপনায় সামগ্রিকভাবে নিরাপত্তামূলক অডিটের এই ব্যবস্থা চালু করা হচ্ছে। যেসব নির্দেষ্ট রাস্তা বেশি দুর্ঘটনা প্রবন, দুর্বল মাটী, রাস্তার দু’পাশে অবৈধ নির্মাণ, রাস্তার উপর যানবাহনের চাপ, রাস্তা নির্মানে বা নকশায় ত্রুটি ইত্যাদি বিষয়গুলি পথ দুর্ঘটনার কারন কিন্তা তা খতিয়ে দেখবে সরকার নির্দিষ্ট উপদেষ্টা সংস্থা। রাজ্য সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ এটি। সমস্ত বিষয় খতিয়ে দেখে দুর্ঘটনা রোধ করা জরুরি। প্রয়োজনে এইসব সমস্যার সমাধান ছাড়াও ট্রাফিক ব্যবস্থা জোরদার করা দরকার এমনকী পথ দুর্ঘটনা ঠেকাতে চালকদের প্রশিক্ষোন ও উপযুক্ত নজরদারি প্রয়োজন। পথ দুর্ঘটনার পিছনে চালকদের অসতর্কতা, মদাসক্ত, রেষারেষির প্রবণতাও অনেকাংশে দায়ী। সুতরাং এসব সমস্যার দ্রুত সমাধান জরুরী। রাজ্য সরকারের উচিত সেফ ড্রাইভ কর্মসূচি এবং স্টার নিরাপত্তা অডিট ব্যবস্থাকে সঠিকভাবে বাস্তবায়িত করা। তাতে দুর্ঘটনা যেমন কমবে এবইং মানূষের জীবনও নিরাপদ হবে।