পাঁশকুড়া হাসপাতালে জীবিতদের মাঝে পড়ে মৃতদেহ, ক্ষোভ রোগী ও এলাকাবাসীর

0
146

পত্রিকা প্রতিনিধিঃ পাঁশকুড়ার রানিহাটির বাসিন্দা অনুপমা সিং বৃহস্পতিবার সকালে পারিবারিক অশান্তির জেরে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। অনুপমাদেবীর পরিবারের লোকেরা তাঁকে উদ্ধার করে চিকিৎসার অন্য পাঁশকুড়া সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করেন। বিকালেই মৃত্য হয় এই মহিলার। শুধু অনুপমাদেবী নন, বৃহস্পতিবার রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয় হাসপাতালে ভর্তি হন জাহিরুদ্দিন মল্লিক নামে এক ব্যাক্তির মৃতদেহ একই ভাবে অন্যান্য রোগীদের মাঝে ফেলে রাখা হয় বলে অভিযোগ। দুই পরিবারের অভিযোগ এর পর থেকে বারবার মৃতদেহ তাঁদের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানিয়ে কোনও লাভ হয়নি। তাঁরা জানিয়েছেন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আসা অন্যান্য রোগীদের মাঝে এই মহিলার মৃতদেহকে ফেলে রাখা হয় প্রায় ২১ ঘন্টা। চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে আসা অন্যান্য রোগীদের দাবী তাঁরাও এই মৃতদেহগুলিকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার আবেদন জানালেও কোনও কাজ হয়নি। অভিযোগ শুক্রবাদ দুপুর থেকে মৃতদেহগুলি থেকে দুর্গন্ধ বার হতে শুরু হয়। এর ফলে রোগীরা বেশি করে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাঁরা বিক্ষোভ দেখানোর পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মৃতদেহগুলিকে সরিয়ে নিয়ে যায়।

জানা গিয়েছে হাসপাতালে কোনও মর্গ নেই অন্যদিকে পাঁশকুড়া থানাতেও মৃতদেহ সংরক্ষনের কোনও ব্যবস্থা না থাকায় প্রায়ই এই ধরনের সমস্যায় পড়তে হচ্ছে ঐ হাসপাতালে রোগী ও তার পরিবারদের।